হুল উৎসব থেকে তির-ধনুক নিয়ে হামলা, তিরবিদ্ধ উপ-প্রধানের ভাই, শালবনি কোবরা ক্যাম্পে জওয়ানের আত্মহত্যা, করোনায় মৃতদের পরিবারকে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের, কসবা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবকে মনোরোগী বলে দাবি করলেন আইনজীবী, বালি তোলা সহ নানা সমস্যার সমাধান করতে হবে বৈঠকে বললেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে, জনপ্রিয় অভিনেতা বর্তমানে মাছ ব্যবসায়ী, হলফনামা জমা দেবার ক্ষেত্রে জরিমানা দিতে হল পাঁচ হাজার টাকা, আজ ঘোষণা হতে পারে নারদ মামলার রায়, বুধবার থেকে পনেরো শতাংশ ভাড়া বাড়ছে ওলা উবেরের,

Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

এই মুহূর্তে

খুনের মামলা হবে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে

বঙ্গবাণী ব্যুরো ডেস্ক:- কলকাতা হাইকোর্টের পর এবার মাদ্রাজ হাইকোর্টেও চরম ভর্ৎসনা মুখে পড়ল নির্বাচন কমিশন। দুটি আদালতের পর্যবক্ষণে একটা বিষয় পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে নির্বাচন কমিশনের খামখেয়ালিপনায় এবং তাদের করোনাবিধি না মেনে নির্বাচন করানোর যে অভিযোগ বারে বারেই উঠছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ,সেই অভিযোগেই শিলমোহর দিল মাদ্রাজ হাইকোর্টও।

দেশজুড়ে করোনা সুনামীর ঢেউ আছড়ে পড়েছে ভয়ানকভাবে। দেশের পাশাপাশি আমাদের রাজ্যে প্রত্যহ নয়া রেকর্ডের নজির গড়ছে করোনা সংক্রমণে। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর সূত্রের খবর, রাজ্যে গত এক দিনেই করোনা আক্রান্ত হয়েছে ১৫,৮৮৯ জন।মৃত্যু হয়েছে ৫৭জনের।ঘন্টায় প্রতি চার জনের মধ্যে একজনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসছে।বিশেষজ্ঞরা এর জন্য দায়ী করেছেন বাংলার নির্বাচন কে কেন্দ্র করে লাগামছাড়া জনসমাগমকে।করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ভয় ধরালেও তাতে বিন্দুমাত্র প্রভাব পড়ছে না বঙ্গের ভোট উৎসবে। কমিশনের তরফে বার বার একাধিক কোভিড বিধি নিষেধ জারি করা হলেও সেই নিষেধাজ্ঞাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়েই চলছে প্রচারপর্ব।

বঙ্গে ভয়াবহভাবে করোনার বাড়বাড়ন্তের মধ্যেই ভোট যুদ্ধের প্রসঙ্গে ফের কমিশনের ভূমিকায় এক রাশ ক্ষোভ উগরে দিল মাদ্রাজ হাইকোর্ট। করোনাকালে ভোট প্রসঙ্গে,মাদ্রাজ হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন,”করোনা অতিমারীর কথা যদি বিবেচনা না করে যদি কমিশন এখনও কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ না করে তাহলে বঙ্গে ভোট গণনা বন্ধ করতে বাধ্য হবে আদালত”।এছাড়াও এদিন হাইকোর্টের তরফে কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারী দেওয়া হয়, বাংলার এহেন বিপর্যস্ত পরিস্থিতির কারণে কমিশনের আধিকারিকদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা রুজু করা উচিত।

প্রসঙ্গত, রাজ্যজুড়ে চলছে অষ্টম দফায় নির্বাচন প্রক্রিয়া ।তার মধ্যে আজ ষষ্ঠ দফায় নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। আজ চলছে সপ্তম দফায় নির্বাচন প্রক্রিয়া। বাকি আর একটি দফা।এর আগেই বঙ্গের করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতির জন্য কলকাতা হাইকোর্টের সমালোচনার মুখে পড়ে নির্বাচন কমিশন। সেক্ষেত্রে বলা হয়, কমিশনের মুখের কথায় কাজ না করে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য। কমিশনের ভূমিকা পালনের প্রসঙ্গে সরব হোন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। পরক্ষণেই, কমিশনের তরফে নির্দেশিকা জারি করা হয় বঙ্গে প্রচারের ক্ষেত্রে কিছু বিধি নিষেধ।কিন্তু তাতেও সন্তুষ্ট নয় হাইকোর্ট।পশ্চিমবঙ্গে ভোট প্রচারকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মিছিল গুলিতে যে হারে মানুষের সমাগম হয়েছে সেই সময়ের কমিশনের ভূমিকা প্রসঙ্গে ক্ষুব্ধ হাইকোর্টের বিচারপতি। প্রধান বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্টতই জানিয়েছেন, “করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ভয়াবহতার জন্য নির্বাচন কমিশনই দায়ী। “

উল্লেখ্য, করোনা আবহে বঙ্গে অষ্টম দফায় নির্বাচন প্রক্রিয়ার প্রসঙ্গে আগেই সরব হয়েছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।তিনি তখনই আঙুল তুলেছিলেন কমিশনের এরূপ সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য।বারবার কমিশনের কাছে আবেদনও করেন বাকি দফায় নির্বাচনগুলি একদিনে করার জন্য। কিন্তু তাতে বিন্দুমাত্র কর্ণপাত করেনি কমিশন। এই রূপ পরিস্থিতিতে এদিনের মাদ্রাজ হাইকোর্টের হুঁশিয়ারিও সপষ্ট বুঝিয়ে দিল করোনা আবহে বাংলায় ভোট গ্রহণ প্রক্রিয়াতে নির্বাচনের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন তাঁরাও।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *