www.bongobanii.com, www.bongobanii.com, www.bongobanii.com, www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com, শালবনি কোবরা ক্যাম্পে জওয়ানের আত্মহত্যা, করোনায় মৃতদের পরিবারকে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের, কসবা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবকে মনোরোগী বলে দাবি করলেন আইনজীবী, বালি তোলা সহ নানা সমস্যার সমাধান করতে হবে বৈঠকে বললেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে, জনপ্রিয় অভিনেতা বর্তমানে মাছ ব্যবসায়ী,

Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

এই মুহূর্তে জেলা

বিজেপিকে প্রত্যাখ্যান করে সবুজ আবির উড়ল জঙ্গলমহলে

বঙ্গবাণী ব্যুরো ডেস্ক,পশ্চিম মেদিনীপুরঃ জঙ্গলমহল দিদির সাথেই। ২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের রায় বুঝিয়ে দিল এই বেশ ভালো আছি। ২০১৮ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া সহ জঙ্গলমহলে ঘাস ফুলের মাঝে পদ্ম ফুটতে দেখা গিয়েছিল। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে ব্যাপক ভাবে সমর্থন করেছিল জঙ্গলমহলের মানুষ। ফের ২০২১ সালে বিধানসভা নির্বাচনে দিদির উপরেই ভরসা রাখলেন জঙ্গলমহলের ভোটাররা। লোকসভায় পিছিয়ে থাকা অধিকাংশ বিধানসভা পুনঃরুদ্ধার করল তৃণমূল কংগ্রেস। এমনকি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ঝাড়্গ্রামের ৪ টি আসনেই ধরাশায়ী বিজেপি। দিলীপ ঘোষের নিজের কেন্দ্র নয়াগ্রাম আসনও ধরে থাকতে পারল না বিজেপি। সবুজ ঝড়ে কুপোকাত গেরুয়া শিবির। জঙ্গলমহলে উড়ছে সবুজ আবির।

একসময় জঙ্গলমহলের রাশ ছিল বামেদের হাতে। তারপর সেই রাশ গিয়েছিল তৃণমূলের হাতে। তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জী জঙ্গলমহলের মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়েছিলেন। ২০১৬ সালের বিধানসভা জঙ্গলমহলের জেলাগুলিতে ভালো ফল করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বদলাতে দেখা যায় সেই জঙ্গলমহলকে। এবারের নির্বাচনী প্রচারে জঙ্গলমহলে ছুটে এসেছিলেন, মোদী, অমিত শাহ থেকে জেপি নাড্ডা, যোগী আদিত্যনাথের মত তাবড় তাবড় নেতারা। কিন্তু জঙ্গল মহলের সভাগুলি জমাতে পারেননি বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। তখন থেকেই ইঙ্গিত স্পষ্ট হচ্ছিল জঙ্গল মহল থেকে বিজেপির পায়ের তলার মাটি সরছে। কিন্তু বিজেপির জেলা, রাজ্য নেতাদের অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস পতনে নামিয়ে আনল ২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে।

মেদিনীপুর কলেজ-কলেজিয়েট মাঠে অমিত শাহের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর শুভেন্দু অধিকারী বলেছিলেন, লাল মাটির দিলীপ ঘোষ, আর বালু মাটির শুভেন্দু অধিকারী জঙ্গল মহলের জেলা বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামের ৬৪ আসনের মধ্যে সব কটিতেই পদ্ম ফোটাবে। কিন্তু বাস্তবায়িত হলনা সেই স্বপ্ন। একুশের নির্বাচনে দিদির উন্নয়নের পক্ষেই রায় দিলেন জঙ্গলমহলের ভোটাররা। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারী সামান্য ভোটে জয়লাভ করলেও দুই মেদিনীপুরে তেমন ভাবে ছাপ ফেলতে পারল লাল মাটি ও বালু মাটির দুই নেতা। জঙ্গলমহলের মানুষ জানিয়ে দিলেন এই বেশ ভালো আছি।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *