Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

এই মুহূর্তে জেলা রাজ্য

বর্ধমান জেলায় এবার ভ্রাম্যমাণ রেস্তোরাঁ

বঙ্গবাণী ব্যুরো নিউজ :পাহাড়হাটীর বাসিন্দা পার্থ মণ্ডল চাকরি করতেন দুবাইয়ের এক হোটেলে । কিন্তু লকডাউন এর জেরে চলে যায় সেই কাজ। আটকে পড়েন দুবাইয়ে । কোনরকম ভাবে ফিরে আসেন এদেশে। তারপর থেকেই লকডাউনের পরিস্থিতিতে গরিব মানুষের জন্য কিছু করার ভাবনা আসে তার । আর সেই ভাবনা থেকেই নিজের বুদ্ধিমত্তা দিয়ে গড়ে তুললেন একটি ভ্রাম্যমান রেস্টুরেন্ট।
যার নাম ‘ইন্দো কন্টি’।

২০১৩ সালে হোটেল ম্যানেজমেন্ট পাস করার পর পার্থবাবু চাকরি শুরু করেন চেন্নাই এ। তারপর সেখান থেকে গোয়া এবং পরে মুম্বাইয়ের নামী হোটেলে কাজ করতেন তিনি । ২০১৫ সালে তিনি দুবাইয়ের পাড়ি দেন । আবুধাবির ‘জুমেরা’ হোটেলে তিনি কর্মরত ছিলেন । ২০২০ সালে লকডাউনে আরো ৫০০০ জন কর্মচারী সাথে কাজ হারান পার্থবাবুও । আটকে পড়ে দুবাইয়ে। আর তারপর কোন রকম ভাবে দেশে ফিরে এসেই নিজের সবার থেকে অন্য রকম কোনো কিছু একটা করার ইচ্ছায় তৈরি করে ফেললেন এই ভ্রাম্যমাণ রেস্টুরেন্ট।

একটি ট্রাকের রূপ পরিবর্তন করে তৈরি করা হয়েছে এই রেস্টুরেন্ট। ট্রাকের চাকা থেকে ছাদ অবধি দিন ১২ ফুট উচ্চতা কে কাজে লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে দ্বিতল রেস্টুরেন্টের রূপ। সম্পূর্ণ পরিকল্পনা এবং রূপায়ণে সময় লেগেছে প্রায় ৭ মাস এবং খরচ হয়েছে আনুমানিক ২৫ লক্ষ টাকা।
নিচের তলাটি হয়েছে রান্নাঘর যেখানে একটি ফাইভ স্টার রেস্টুরেন্ট এর সমান ব্যবস্থা আছে। দোতলাতে রয়েছে ৫০জনের বসার ব্যবস্থা। এবং নিচের তলা থেকে দোতালায় খাবার পৌঁছানোর জন্য রয়েছে একটি লিফট। থাকছে লাইভ আইসক্রিমের সাথে সাথে আরও বিভিন্ন বিনোদনমূলক ব্যবস্থাও।‌

এই রেস্টুরেন্টে আরেকটি অভিনবত্ব হল এখানে শুধু সাধারণ মানুষ খাবার পাবেন তা নয় এলাকার দুঃস্থ, আর্থিক ভাবে পিছিয়ে পড়া মানুষদের জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে এই রেস্টুরেন্টে। হোম ডেলিভারি দিয়ে যেমন কিছু আয় হবে সে রকমই কিছু অসহায় মানুষের মুখে খাবার তুলে দেওয়া হবে এই রেষ্টুরেন্টের তরফে। অক্ষয় তৃতীয়ার দিন উদ্বোধন হলেও যেহেতু সরকারি বিধিনিষেধ রয়েছে তাই এখনই পুরোদস্তুর কাজ তারা শুরু করতে পারছেন না । তবে করোনা বিধি মেনেই ধীরে ধীরে করা হচ্ছে কাজ ।‌ মেমারি স্টেশন , মেমারী বাস স্ট্যান্ড এবং অন্যান্য অসহায় মানুষদের মধ্যে ইতিমধ্যেই তারা খাবার পৌঁছে দিচ্ছে পার্থবাবুর ভ্রাম্যমান রেস্টুরেন্ট ‘ ইন্দো কন্টি ‘।

স্বপ্নের রেস্টুরেন্ট ‘ইন্দো কন্টি’ সম্পর্কে পার্থ বাবু বলেন, ” সব সময় ইচ্ছে ছিল অন্যরকম একটা কিছু করার । কিন্তু বিভিন্ন জায়গায় চাকরি করতে করতে সেটা হয়ে উঠছিল না। ২০২০ তে যখন লকডাউন এর জেরে কাজ চলে যায় তখন দেশে ফিরে এসে ভাবি এবার সেই স্বপ্নটা পূরণ করতেই হবে । তাই এই ভ্রাম্যমান রেস্টুরেন্ট তৈরি করি । দেশের বিভিন্ন জায়গায় এরকম রেস্টুরেন্ট থাকলেও আমার ইচ্ছা ছিল সে সবগুলো থেকে একটু অন্যরকম একটু ইউনিক হবে আমার রেস্টুরেন্ট। তাই সেই মতই তৈরি করা হয়েছে এই রেষ্টুরেন্টটিতে । এখানে ফাইভ স্টার এর মতো উন্নত মানের কিচেনের ব্যবস্থা আছে । রয়েছে ৫০ জনের বসে খাওয়ার ব্যবস্থা । তার সাথে রয়েছে লিফট। এবং লাইভ আইসক্রিমের সুবিধা থাকবে ও আরও অন্যান্য বিনোদনের সুবিধাও। সারা পশ্চিমবঙ্গ জুড়েই সার্ভিস দেবে আমাদের রেস্টুরেন্ট। তবে কেউ এই সার্ভিস নিতে চাইলে তাকে আগে থেকে আমাদের সাথে যোগাযোগ করে কথাবার্তা বলে সবকিছু ঠিক করে নিতে হবে। ”

ছেলের এই উদ্যোগে ভীষণ খুশি পার্থবাবুর বাবা উমাপতি মন্ডল। গর্বিত উমাপতি মন্ডল বলেন নতুনত্ব রয়েছে ছেলের ভাবনায় । তবে তার ছেলে যে রোজকার করার সাথে সাথে দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়াতে চেয়েছে এটাই তাঁকে আরো বেশি খুশি করেছে।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *