www.bongobanii.com, www.bongobanii.com, www.bongobanii.com, www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com, শালবনি কোবরা ক্যাম্পে জওয়ানের আত্মহত্যা, করোনায় মৃতদের পরিবারকে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের, কসবা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবকে মনোরোগী বলে দাবি করলেন আইনজীবী, বালি তোলা সহ নানা সমস্যার সমাধান করতে হবে বৈঠকে বললেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে, জনপ্রিয় অভিনেতা বর্তমানে মাছ ব্যবসায়ী,

Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

এই মুহূর্তে জেলা রাজ্য

প্রধানমন্ত্রী কোভিড বৈঠকের পর ক্ষোভ উগরে দিলেন মমতা

বঙ্গবাণী ব্যুরো ডেস্ক: দেশে ক্রমবর্ধমান কোভিড সংক্রমণের সংখ্যা এবং তার সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে মৃত্যুর সংখ্যা।
আজ সেই বিষয়ক বৈঠকের পরই সাংবাদিক বৈঠকে এসে কেন্দ্রের প্রতি ক্ষোভ উগরে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কারণ সেই বৈঠকে সকল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের ডাকা হলেও বিজেপি শাসিত কয়েকটি অঞ্চলের ডি.এম ছাড়া আর কাউকে কোন রকম কোন কথা বলতে দেওয়া হয়নি বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী। এমনকি বৈঠকের শুরুতে কোন মুখ্যমন্ত্রীদের প্রতি কোন রকম সৌজন্যতা বিনিময়ও করা হয়নি যার ফলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন , সম্পূর্ণ বৈঠকটি ছিল মুখ্যমন্ত্রীদের প্রতি অপমানজনক।
সকল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তাদের কোভিড সম্পর্কিত সমস্যা নিয়ে অপেক্ষা করলেও কয়েকজন ডি এম কে কথা বলার সুযোগ দেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী নিজের ভাষণ দিয়ে বৈঠকটি শেষ করে দেন। যেখানে সকল মুখ্যমন্ত্রী শুধুমাত্র পাপেটের মতো বসে থাকতে বাধ্য হয়েছিলেন।


বৈঠকে রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি, টিকার অভাব, অক্সিজেনের অভাব ,রেমিডিসিভির এর অভাব সম্পর্কে কিছুই জানতে চাওয়া হয়নি। এমনকি নতুন যে রোগ ‘ব্ল্যাক ফাঙ্গাস’ তার সম্পর্কেও কিছু তথ্য জিজ্ঞেস করা হয়নি যেখানে ইতিমধ্যেই রাজস্থান ‘ব্ল্যাক ফাঙ্গাসকে’ প্যানডেমিক হিসাবে ঘোষণা করেছে। এবং এই রাজ্যে ‘ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের’ দু-তিনটি কেস দেখা গেলেও তার ওষুধ সম্পর্কে কেন্দ্রের তরফ থেকে এই বৈঠকে কোনরকম তথ্যই পাওয়া যায়নি। তাই তিনি এপ্রসঙ্গে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী এত ইনসিকিওর ফিল করছে নিজেকে যে একটা মুখ্যমন্ত্রীর কথা শুনতে চাইলেন না। এত ভয় কিসের ? এত অবহেলা কিসের?’

মুখ্যমন্ত্রী আরো বলেন যে প্রধানমন্ত্রী এই করোনা পরিস্থিতি কে ভীষন ক্যাসুয়াল ভাবে নিচ্ছেন । ওনার অবহেলাতেই শেষ ছয় মাস কোন রেস্ট্রিকশন না মানায় করোনা পরিস্থিতির এই অবস্থা। এমনকি তিনি আট দফায় ভোট কেও দায়ী করেন এই অবস্থার জন্য কারণ তার মতে সেন্ট্রাল ফোর্স এসে বাংলার গ্রামে গ্রামে করোনা পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর করে তুলেছে।
উত্তরপ্রদেশে কোনরকম কোভিড প্রটোকল না মেনেই গঙ্গায় মৃতদেহ ভাসিয়ে দেওয়ার প্রসঙ্গে তিনি বলেন ‘নমামী গঙ্গা আজ মৃত্যুপুরী গঙ্গায় পরিণত হয়েছে। কৈ সেখানে তো কোনো সিবিআই যাচ্ছেনা। ইডি জানা যাচ্ছে না। গঙ্গাকে বিষাক্ত করে দিচ্ছে ওরা। সারা দেশটাকে দূষণময় করে দিচ্ছে ।আবার বলছে করোনা কমে যাচ্ছে।’ টিকার দাম এবং অক্সিজেনের উপর জিএসটি বিষয়ে ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী।
এছাড়াও সাংবাদিকেরা আগত ঘূর্ণিঝড় সম্পর্কে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন এখনো পর্যন্ত আমফানের কোনরকম ক্ষতিপূরণ পাওয়া যায়নি, আর আজ তো কোনো কথাই বলতে দেওয়া হয়নি । ঘুরে ফিরে বারবার মুখ্যমন্ত্রী কন্ঠে কেন্দ্রের প্রতি অভিযোগের সুর উঠে এসেছে।

সর্বোপরি এই বৈঠকটিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সুপার ফ্লপ বলে উল্লেখ করেছেন। কারণ এখানে রাজ্য সরকার সব রকম প্রস্তুতি করে তৈরি থাকলেও রাজ্যবাসীর সব রকম অসুবিধার কথা এবং করোনা সংক্রান্ত কোনো রকম দাবি-দাওয়ার কথা জানানো যায়নি । যার ফলে মুখ্যমন্ত্রী একতরফা বৈঠকের এবং একনায়কতন্ত্র শাসনের অভিযোগের আঙুল তোলেন কেন্দ্রের দিকে।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *