Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

এই মুহূর্তে জেলা রাজ্য

বিশ্ব দুগ্ধ দিবসে করোনা রোগীদের জন্য বর্ধমান ওয়েভের প্রকল্প মিল্কওয়েভ

বঙ্গবাণী ব্যুরো নিউজ :অতিমারির সময়ে নতুন একটা চিত্র দেখা যাচ্ছে। বিপদে পড়া মানুষের পাশে সাহায্য নিয়ে এগিয়ে আসছেন বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ও সংগঠন। কোভিড সংক্রমণের প্রথম পর্বে অনেকেই খাবার, ওষুধ নিয়ে হাজির হয়েছিলেন।এবারেও রোগীদের কাছে অক্সিজেন, ওষুধ ও খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন অনেক সংস্থাই। আজ থেকে দশদিন বর্ধমান হাসপাতালে দুধ পৌঁছে দেবে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।

আজ এই প্রকল্পের সূচনা হল বিশ্ব দুগ্ধ দিবসে। বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কোভিড আক্রান্ত মানুষেরা যে ওয়ার্ডে ভর্তি আছেন তাদের কাছে এক গ্লাস করে গরম দুধ পৌঁছে দেওয়া হবে। বর্ধমানের সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘ বর্ধমান ওয়েভ’ এর উদ্যোগে এই কর্মসূচির সূচনা হল আজ। প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে ‘ মিল্কওয়েভ’। কোভিড পরিস্থিতিতে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত আকারে অনুষ্ঠান হয়। উপস্থিত ছিলেন হাসপাতালের ডেপুটি সুপার ডাঃ কুণালকান্তি দে, ডাঃ শৈলেন প্রামাণিক , ডাঃ কৌস্তভ নায়েক , ওয়েভের সভাপতি পার্থ চৌধুরী , সম্পাদক অনির্বাণ হাজরা সহ অন্যান্য সদস্যেরা। বড়শুলের দুগ্ধ সমবায়ের পক্ষে পিন্টু ঘোষ ও সমাজসেবী পল্লব দাস এবং শিক্ষক জয়ন্ত বিশ্বাস ও উপস্থিত ছিলেন। সঞ্চালনায় ছিলেন বিশিষ্ট বাচিকশিল্পী শ্যামাপ্রসাদ চৌধুরী।
পিন্টু ঘোষ জানান, এই প্রকল্পে তারা কোভিড রোগীদের কাছে দশদিন দুধ পৌঁছে দেবেন। সংস্থার সম্পাদক অনির্বাণ হাজরা বলেন, তারা সারা বছর নানা কর্মসূচি পালন করে আসছেন। বর্ধমানের মানুষের আশীর্বাদ পেলে তারা আরো ভাল কাজ করতে পারবেন। হাসপাতালের ডেপুটি সুপার কুণালকান্তি দে জানান, এই প্রকল্পে এগিয়ে আসার জন্য স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাকে অভিনন্দন। আরো অনেকে এগিয়ে এলে তবেই এই রোগের বিরুদ্ধে আরো ভালভাবে লড়াই করা যাবে। অন্যান্য চিকিৎসকরাও বলেন পুষ্টিকর খাবার কোভিড রোগীদের জন্য ভীষণ প্রয়োজনীয়।হাসপাতালে থাকাকালীন তারা তা পেয়ে যাবেন।

জানা গেছে, মূলত হাসপাতালের কোভিড ওয়ার্ডে ভর্তি রোগীদের এই দুধ দেওয়া হবে। তবে যদি সংকুলান হয় তাহলে সমস্ত ওয়ার্ডের রোগীদের তা দেওয়া হবে।এই প্রকল্পে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সাহায্য করছেন। সহযোগিতা করবেন ক্যান্টিন কর্মীরাও।আয়োজকেরা জানিয়েছেন সম্ভব হলে আরো কিছুদিন প্রকল্প বাড়ানো যায় কী না তা তারা ভাববেন।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *