Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

রাজ্য

ট্যুইটে ক্ষমাপ্রার্থী সোনালী, বাঁচালনা ‘নেক্সট চয়েস’

বঙ্গবাণী ব্যুরো নিউজ : ট্যুইটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে ক্ষমা চেয়ে তৃণমূলে ফেরার আবেদনের সোনালি গুহের! আমি আপনাকে ছাড়া বাঁচব না বলে কাতর আর্জি প্রাক্তণ তৃণমূল নেত্রীর। টুই্যটে সোনালি গুহ লিখেছেন, “সম্মানীয়া দিদি, আমার প্রণাম নেবেন, আমি সোনালী গুহ অত্যন্ত ভগ্নহৃদয়ে বলছি যে, আমি আবেগপূর্ণ হয়ে চরম অভিমানে ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে অন্য দলে গিয়েছিলাম যেটা ছিল আমার চরম ভুল সিদ্ধান্ত, কিন্তু সেখানে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারিনি। মাছ যেমন জল ছাড়া বাঁচতে পারে না, তেমনই আমি আপনাকে ছাড়া বাঁচতে পারব না। দিদি আমি আপনার কাছে ক্ষমাপ্রার্থী, দয়া করে আমাকে ক্ষমা করে দিন। আপনি ক্ষমা না করলে আমি বাঁচব না। আপনার আঁচলের তলে আমাকে টেনে নিয়ে, বাকি জীবনটা আপনার স্নেহ তলে থাকার সুযোগ করে দিন।”

ভোটের আগে ও পরে বারংবার নেতা নেত্রীদের দলবদলের খবর পুরনো নয়। গত ৮ই মার্চ বিজেপি দলে অফিসিয়ালি যোগদান করেন সোনালি গুহ এবং প্রথম দিনই সাংবাদিকের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে বলেন চারবার তৃণমূলের এমএলএ পদপ্রার্থী হয়ে থাকলেও এইবারে তৃণমূল দলের প্রার্থীর নামের মনোনয়ন জমা দেবার পর জানা যায় তাকে মনোনীত ব্যক্তিদের তালিকায় রাখা হয়নি। টিকিট না পাওয়ায় বলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাকে ছেড়ে দিয়েছেন কিন্তু তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ছাড়েননি এমন কথাই জানান সোনালী গুহ। শুধুমাত্র এই কারণেই অভিমানে তিনি তার ‘নেক্সট চয়েস’ নিয়েছিলেন ।

টিকিট না পাবার পরে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেক্রেটারি ফোন করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে দেখা করতে আমন্ত্রণ জানালেই সোনালী গুহ জানান তাঁর বিজেপিতে যোগদানের কথা হয়েছে। কিন্তু বাংলাতে বিজেপি ভোটে হেরে যাবার পরেই আবার সোনালী গুহের ফিরে আসতে চেয়ে মাননীয়াকে এই ক্ষমার চিঠি কি তাকে ফিরিয়ে নেবে তৃণমূলে? রাজনৈতিক মহলে উঠছে প্রশ্ন।

এর আগেও বহুবার সোনালি গুহ নানান বিতর্কে জড়িয়েছেন নিজেকে। ২০১১ সালে তিনি এক কর্মরত পুলিশকর্মীকে থানাতেই দাঁড়িয়েবলেছিলেন “থাপ্পড় মারব আপনাকে”, সেই ভিডিও ফুটেজ টিভির পর্দায় এলে বিতর্কের মুখে পড়েন তিনি। ডেপুটি স্পিকার হবার পরেও সোনালি গুহের ব্যবহারের ব্যতিক্রম ঘটেনি। সামান্য ফ্ল্যাটের লিফ্ট বন্ধ থাকায় গোলাবাড়ি থানায় তৃণমূলের গুন্ডাগিরির হাওড়ার ঘটনা প্রমাণ দেয়। তিনি নিজেকে “আই অ্যাম দ্যা ম্যান অফ্ দ্যা চিফ মিনিস্টার, আই অ্যাম দ্যা গভর্নমেন্ট” বলে দাবি করতেন। আর আজকের চিঠিতে তাঁর ভুল সিদ্ধান্তের কথা স্বীকার করে নিয়ে নিজেকে জলহীন মাছের সাথে তুলনা করে দলে ফিরতে চেয়েছেন। এখন তাঁকে আবার দলে ফেরানো হয় কিনা সেটাই দেখার।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *