হুল উৎসব থেকে তির-ধনুক নিয়ে হামলা, তিরবিদ্ধ উপ-প্রধানের ভাই, শালবনি কোবরা ক্যাম্পে জওয়ানের আত্মহত্যা, করোনায় মৃতদের পরিবারকে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের, কসবা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবকে মনোরোগী বলে দাবি করলেন আইনজীবী, বালি তোলা সহ নানা সমস্যার সমাধান করতে হবে বৈঠকে বললেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে, জনপ্রিয় অভিনেতা বর্তমানে মাছ ব্যবসায়ী, হলফনামা জমা দেবার ক্ষেত্রে জরিমানা দিতে হল পাঁচ হাজার টাকা, আজ ঘোষণা হতে পারে নারদ মামলার রায়, বুধবার থেকে পনেরো শতাংশ ভাড়া বাড়ছে ওলা উবেরের,

Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

জেলা রাজ্য

করোনা পরীক্ষার নতুন ডিভাইস আইআইটি খড়্গপুরের

সায়ন্তী মন্ডল, পশ্চিম মেদিনীপুর: করোনার দ্বিতীয় ঢেউ যখন আছড়ে পড়ছে দেশ জুড়ে। তখন চিকিৎসকদের সবার মুখে একটাই কথা আরও টেস্ট, আরও বেশী করে টেস্ট করাতেই হবে। না হলে সংক্রমণ রোখা সম্ভব নয়। এবারে আরও বেশী করে ও কম খরচে করোনা পরীক্ষার জন্য একটি নতুন ডিভাইস তৈরি করল আইআইটি খড়্গপুর। আইআইটি খড়্গপুরের বিশেষজ্ঞদের তৈরি ডিভাইসটির নাম দিয়েছেন ‘কোভির‍্যাপ’। ভার্চুয়াল মাধ্যমে এক সাংবাদিক সম্মেলনে আইআইটি খড়্গপুরের তৈরি এই ডিভাইসের কার্যকারিতা ব্যাখ্যা করেন বিশেষজ্ঞরা।

গতবছর ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতে ‘নোভেল টেকনোলজি ফির কোভিড-১৯ রায়াপিড টেস্ট’ নামক একট পোর্টেবল ডিভাইস তৈরি করে ছিলেন আইআইটি খড়্গপুরের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক সুমন চক্রবর্তী ও স্কুল অফ বায়োসায়েন্স বিভাগের ভাইরোলজিস্ট ডক্টর অরিন্দম মণ্ডল। র‍্যাপিড টেস্টের এই ডিভাইসটি আইসিএমআর এর অনুমোদনও পেয়েছিল। এই ডিভাইসের মাধ্যমে মাত্র চারশো টাকায় করোনা পরীক্ষা করা যাবে বলে বিশেষজ্ঞদের দাবি।   

এবার আরও একধাপ এগিয়ে আইআইটি খড়্গপুর তৈরি করল ‘কোভির‍্যাপ’ ডিভাইস। ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে আইআইটি খড়গপুরের ডিরেক্টর অধ্যাপক ভি কে তেওয়ারি বলেন, ‘সাধারণ মানুষের কাছে এই উদ্ভাবন দ্রুত পৌঁছানোর জন্য বিভিন্ন বাণিজ্যিক সংস্থা প্রযুক্তিটি নেওয়ার জন্য আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। এই নতুন পরীক্ষার পদ্ধতিটি অত্যন্ত নির্ভরযোগ্য এবং নির্ভুল বলেও দাবি করেন। ধন্যবাদ জানিয়েছেন দুই আবিষ্কর্তাকে।’ আইআইটি খড়্গপুরের মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক সুমন চক্রবর্তী ও স্কুল অফ বায়োসায়েন্সের ভাইরোলজিস্ট অরিন্দম মণ্ডলের দাবি, এই নয়া ডিভাইসটিতে পুরোপুরি আরটিপিসিআর এর বৈজ্ঞানিক ভিত্তি অবলম্বন করে করোনা পরীক্ষা করা যাবে। এক ফুট বাই এক ফুট মাপের পোর্টবল ডিভাইস যেখানে খুশি নিয়ে গিয়ে পরীক্ষা করা যাবে। এই ডিভাইস চালানোর জন্য তেমন কোনও বিশেষজ্ঞ বা দক্ষ কর্মীর প্রয়োজন নেই। এতে নাক ও গলার থেকে নেওয়া নমুনা সাধারণ ডিসপোজেবল কাগজের স্ট্রিপ ব্যবহার করে ৪০ মিনিটে কমপক্ষে ৫টি নমুনা পরীক্ষা করা যাবে। সাধারণ লোকজনকে সামান্য প্রশিক্ষণ দিয়ে এই পরীক্ষা করা যাবে। অত্যাধুনিক কোনও ল্যাবরেটরি লাগবেনা। স্মার্ট ফোনে একটি আ্যপের মাধ্যমে জানা যাবে কোভিড পজিটভ না নেগেটিভ। তাঁদের দাবি, শুধুই করোনা নয়, ভবিষ্যতে পৃথিবীর যে কোনোও ভাইরাস পরীক্ষা করা যেতে পারে এই ডিভাইসের মাধ্যমে। আইসিএমআর এর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে এই ডিভাইস। 

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *