হুল উৎসব থেকে তির-ধনুক নিয়ে হামলা, তিরবিদ্ধ উপ-প্রধানের ভাই, শালবনি কোবরা ক্যাম্পে জওয়ানের আত্মহত্যা, করোনায় মৃতদের পরিবারকে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের, কসবা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবকে মনোরোগী বলে দাবি করলেন আইনজীবী, বালি তোলা সহ নানা সমস্যার সমাধান করতে হবে বৈঠকে বললেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে, জনপ্রিয় অভিনেতা বর্তমানে মাছ ব্যবসায়ী, হলফনামা জমা দেবার ক্ষেত্রে জরিমানা দিতে হল পাঁচ হাজার টাকা, আজ ঘোষণা হতে পারে নারদ মামলার রায়, বুধবার থেকে পনেরো শতাংশ ভাড়া বাড়ছে ওলা উবেরের,

Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

রাজ্য

টেন্ডার থেকে টাকা না নিলে পার্টি চলবে কিভাবে

বঙ্গবাণী নিউজ, পূর্ব বর্ধমান: কাটমানি নিয়ে এবারের নির্বাচনী প্রচারে সবথেকে বেশী সরব হয়েছিল বিরোধীরা। কিন্তু এখনও যে সেই কাটমানি নেওয়ার অভ্যাস থেকে সরে আসতে পারেনি শাসক দলের অনেকেই তার প্রমাণ মিলল গলসির ২ ব্লকের গোহগ্রাম পঞ্চায়েতে। পঞ্চায়েত প্রধান রিঙ্কু ঘোষ পরিস্কার জানিয়ে দেন, ‘পঞ্চায়েতের টেন্ডার অফলাইনে করা হলে সেখান থেকে আসা টাকায় দলের খরচা চলবে। দলের বিভিন্ন খরচের জন্য টাকার প্রয়োজন। সেইজন্যই অনলাইনের পরিবর্তে অফলাইনে করার কথাই ভাবা হয়েছিল।’

দল চালাতে গেলে টাকা লাগে এমনই কথা বলছেন প্রধান রিঙ্কু ঘোষ

প্রধানের এই মন্তব্যে রীতিমতন চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে জেলার রাজনৈতিক মহলে। এবারে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে নির্বাচনী প্রচারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন দলের কোনো ভুলের দায় তিনি নেবেন এবং যিনি ভুল করবেন তার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে । নতুন সরকার গঠনের দুই মাসের মধ্যে সেরকম বেশ কিছু পদক্ষেপ নিতেও দেখা গিয়েছে তাঁকে। অত্যন্ত কড়া ও দক্ষতার সঙ্গে তিনি নিজেই এবারে সরকারের কাজ পরিচালনা করছেন। কিন্তু তাঁর দলের অনেকেই এখনও যে ভুলতে পারেননি তাদের পুরনো অভ্যেস  এদিনের ঘটনা তারই প্রমাণ দিল আরও একবার।

গোহগ্রাম পঞ্চায়েত অফিস

গলসির গোহগ্রাম পঞ্চায়েতে ২০১৯-২০ ও ২০২০-২১ অর্থবর্ষে ঢালাই রাস্তা, নর্দমা, পুকুরঘাট তৈরী টেন্ডার ডাকার বিষয়ে ১৭ জুন পঞ্চায়েতে মিটিং করা হয়। সেখানে ঠিক করা হয় অনলাইনে টেন্ডার প্রক্রিয়া করা হবে। কিন্তু তার পরেও টেন্ডার নোটিশ করেননি পঞ্চায়েত প্রধান। ২৯ তারিখে এ বিষয়টি নিয়ে টেন্ডার অর্থ কমিটির বৈঠকে চমর বিশৃঙ্খলার পরিস্থিত তৈরী হয়।  মিটিং ঘিরে চিৎকার চেঁচামিচি করতে থাকেন সদস্যরা। ঘটনার জেরে শোরগোল পরে এলাকায়।

উপপ্রধান সহ পঞ্চায়েতের অনান্য সদস্যরা

পঞ্চায়েতের উপপ্রধান বিমল ভক্ত বলেন, ‘অনলাইনে টেন্ডার করার প্রক্রিয়া করার পরেও কেন সেই নোটিশ টাঙানো হলনা সেটা জানতে চেয়ে আমরা জানতে পারি প্রধান অফলাইন টেন্ডার ডাকার নির্দেশ দিয়েছেন। প্রধানকে আমরা বলেছি কেন এটা করা হল। উনি বলছেন অফলাইনে করতে হবে এটা পার্টির কিছু নেতা ওনাকে নির্দেশ দিয়েছে। অফলাইনে করলে সেই টাকা কিছু লোকের পকেটে ঢুকবে। পার্টির কিছু নেতা এই নির্দেশ দিচ্ছে প্রধানকে। পার্টির ও সরকারের ভাবমূর্তির স্বচ্ছতা বজায় রাখতেই আমরা চেয়েছি এটা অনলাইনে করা হোক। সেটা নিয়েই অশান্তি গন্ডগোল। কিছু ঠিকাদার বিনা প্রতিযোগিতায় বরাত পেয়ে যাবেন। সেখান থেকে কাটমানি নেওয়া হবে । আর সেই টাকাতেই নেতাদের পকেটে ভরবে । তাই কিছু নেতাদের কথা শুনে প্রধান এমন কাজ করতে চাইছেন। তবে সেটা কোন নেতাদের কথা তা পঞ্চায়েত প্রধান বলতে পারবেন। আমরা চাই পঞ্চায়েতের কাজ স্বচ্ছতার সাথে হোক । আর উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি দেখে সরকারের ভাবমূর্তি স্বচ্ছ করুক।’

যদিও পঞ্চায়েত প্রধান রিঙ্কু ঘোষ বলেন, ‘বিধানসভা ভোটের আগে পর্যন্ত এসমস্ত টেন্ডার উপপ্রধান বিমল ভক্ত দেখতেন । সব টেন্ডার উনি উদ্যোগ নিয়ে করিয়েছিলেন। এখন অন্যের নামে দোষ দিচ্ছেন। যদি পঞ্চায়েতের কাজে আগে কাটমানি নেওয়া হয়ে থাকে তাহলে তা তিনি নিজেই বলতে পারবেন। আমাকে বলা হয়েছিল টেন্ডার অনলাইনে হলে দেরি হবে। তাই অফলাইনে টেন্ডারটি করতে চেয়েছিলাম তাড়াতাড়ি কাজের জন্য। সেটাতে সবার আপত্তি যখন, তখন অনলাইনেই করা হবে।’

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *