www.bongobanii.com, www.bongobanii.com, www.bongobanii.com, www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com, শালবনি কোবরা ক্যাম্পে জওয়ানের আত্মহত্যা, করোনায় মৃতদের পরিবারকে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের, কসবা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবকে মনোরোগী বলে দাবি করলেন আইনজীবী, বালি তোলা সহ নানা সমস্যার সমাধান করতে হবে বৈঠকে বললেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে, জনপ্রিয় অভিনেতা বর্তমানে মাছ ব্যবসায়ী,

Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

রাজ্য

পূর্ণিমা ও চন্দ্রগ্রহণের দিনই ঘূর্ণিঝড় ইয়াশ, ক্ষতি বাড়তে পারে বলে আশঙ্কায় আবহাওয়াবিদরা

বঙ্গবাণী ব্যুরো নিউজ: ইয়াশ এর জন্য অপেক্ষারত পূর্ণিমা ও পূর্ণ গ্রাস চন্দ্রগ্রহণ। আর সেটাই আরো বেশি ভয়ঙ্কর করে তুলতে পারে ইয়াশকে তারই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন আবহাওয়াবিদরা। ক্রমেই শক্তি বৃদ্ধি করে ঘূর্ণিঝড়টি বাংলার দিকে এগিয়ে আসছে এবং এই দুটি প্রভাবের ফলে যে শক্তি আরোও বৃদ্ধি পাবে তা আশা করা যায়।  যা উপকূল এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করতে পারে। আম্ফান এর থেকেও ভয়ঙ্কর হতে চলেছে এটি, সেই আশঙ্কা করেই প্রশাসনের তরফ থেকে রাজ্যবাসীকে সর্বদা সতর্ক করা হচ্ছে।

আগামী বুধবার সকাল ৯ টা ১৫ মিনিট নাগাদ পূর্ণিমার প্রভাবে আরম্ভ হবে জোয়ার । যা সর্বোচ্চ সীমায় পৌঁছাবে সকাল ১০টা ৪৮নাগাদ। এরপর  জলের উচ্চতা ধীরে ধীরে নামতে থাকবে । সন্ধে ৬টার খানিক পর ভাটার প্রভাবের জলতল একেবারে নীচে নেমে যাবে। তারপর আবার পুনরায় জোয়ারের প্রভাবে জল বাড়তে থাকবে এবং রাত ১১টা ৪ নাগাদ জলতল সর্বোচ্চ সীমায় পৌঁছাবে ।

অপরদিকে এই দিনই দেখা যাবে এ বছরের প্রথম ও শেষ ‘ব্লাড মুন’ । বেলা ৩ টে ১৫ মিনিট থেকে পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ শুরু হবে যেটা চলবে সন্ধে ৬ টা ২৩ মিনিট পর্যন্ত। সমুদ্রের থেকে স্থলভাগের দিকে এগোনোর সাথে সাথে ইয়াশের গতিবেগ বাড়বে। ঘন্টায় ১১৮ থেকে ১৮৫ কিলোমিটার গতিতে স্থলভাগে আছড়ে পড়ার কথা। কিন্তু সময়ের যদি সামান্য হেরফের হয় তাহলে সাইক্লোনটি আরো ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে।  সকাল অথবা একটু রাতের দিকে যদি স্থলভাগে প্রবেশ করে  তাহলে তার প্রভাব অনেক বেশী ক্ষতিকারক হবে বলেই মনে করছেন আবহাওয়াবিদরা।

যেহেতু ইয়াশ এর গতিবেগ ১১৮ থেকে ১৮৫ কিলোমিটার তাই আবহাওয়াবিদরা অনুমান করছেন  , যে সময় তার স্থলভাগের পড়ার কথা এটি তার আগেই হয়তো স্থলভাগে প্রবেশ করবে।  যার ফলে উপকূলে এলাকাগুলি ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হবে ।  তাই প্রশাসন থেকে বারবার উপকূলবর্তী অঞ্চলগুলিকে সতর্ক করা হচ্ছে এবং বিভিন্ন পদক্ষেপও গ্রহণ করা হয়েছে।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *