হুল উৎসব থেকে তির-ধনুক নিয়ে হামলা, তিরবিদ্ধ উপ-প্রধানের ভাই, শালবনি কোবরা ক্যাম্পে জওয়ানের আত্মহত্যা, করোনায় মৃতদের পরিবারকে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের, কসবা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবকে মনোরোগী বলে দাবি করলেন আইনজীবী, বালি তোলা সহ নানা সমস্যার সমাধান করতে হবে বৈঠকে বললেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে, জনপ্রিয় অভিনেতা বর্তমানে মাছ ব্যবসায়ী, হলফনামা জমা দেবার ক্ষেত্রে জরিমানা দিতে হল পাঁচ হাজার টাকা, আজ ঘোষণা হতে পারে নারদ মামলার রায়, বুধবার থেকে পনেরো শতাংশ ভাড়া বাড়ছে ওলা উবেরের,

Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

দেশ রাজ্য

করোনা সংক্রমন ছড়াচ্ছে লিফট থেকেও, সতর্ক করলেন চিকিৎসকরা

বঙ্গবাণী নিউজ ব্যুরো : সম্প্রতি ‘উই ক্যান’ নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা এ রাজ্যের কলকাতা সহ বেশ কয়েকটি বড় শহরের আবাসন গুলির উপরে সমীক্ষা চালিয়ে দেখেছেন লিফটের মাধ্যমেও সংক্রমন ছড়াচ্ছে। শুনলে অবাক হতে হবে, এই স্বেচ্ছেসেবী সংস্থার অনুসন্ধানে উঠে এসেছে কলকাতার পরেই দুর্গাপুর, আসানসোল, পূর্ব বর্ধমানের মতন জেলা গুলিও রয়েছে এই তালিকায়। চিকিৎসকদের সঙ্গেও কথা বলা হয়েছে সংস্থা পক্ষ থেকে। চিকিৎসকদের একটা অংশ এই সমীক্ষাকে স্বীকৃতি দিয়েছেন। অনেকেই বলেছেন, ড্রপলেট থাকার একটা সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। কারন লিফটের ভিতরে সাধারণত বাইরের আলো –হাওয়া ঢোকে না। সব সময়ে বদ্ধ অবস্থায় থাকায় ভিতরে থাকা জীবনু থেকেই যাচ্ছে। আর সংক্রণ ছড়াচ্ছে এখান থেকেই।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এখন ছোট বা বড় আবাসন গুলি থেকে বিভিন্ন শপিং মল, অফিস গুলিতে লিফটের ব্যবহার অনেকগুন বেড়েছে। সাধারণত মানুষ লিফট থাকলে দোতলা বা তিনতলাও হেঁটে ওঠেন না। এই প্রবণতা সর্বত্রই। লিফটে লোক সংখ্যা নির্দিষ্ট থাকে। ফলে খুব কাছাকাছি মানুষকে দাঁড়াতে হয়। কলকাতার বিশিষ্ট চিকিৎসক সমীর সাহা বলেন, ‘লিফটের ভিতরে অনেকেই ঘেষাঘেষি করে দাঁড়ান। ছোট আবাসন গুলিতে লক্ষ্য করবেন লিফটের বক্সটি চারজনের ক্যাপাসিটি। ফলে আপনি ইচ্ছা করলেও সরে দাঁড়াতে পারবেন না। এর মধ্যে কেউ করোনা সংক্রমিত হয়ে থাকতে পারে। ডাক্তারি পরিভাষায় যাঁদের আমরা উপসর্গহীন বলছি। সেই মানুষদের মধ্যে থেকেও ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা প্রবল। আমরা বলছি, খুব প্রয়োজন না হলে লিফট ব্যবহার না করতে। সম্ভব হলে সপ্তাহে ২দিন (যেখানে বাইরের লোক বেশী আসেন) স্যানিটাইজ করার জন্য।’ ‘উই ক্যান’ সংস্থার সদস্য আব্দুল মীর হাসান বলেন, ‘আমরা কলকাতার ৫২টি, আসানসোলের ৩১টি, দুর্গাপুরের ২৯টি ও পূর্ব বর্ধমানের ২২টি আবাসন, শপিং মল, অফিসে সমীক্ষার কাজ করেছি। এই জায়গায় সর্বত্রই লিফট ব্যবহার হয়। শুনলে অবাক হবেন এপ্রিল মাসের ১০ তারিখ থেকে ২০ তারিখ অবধি একটি জায়গাতেও লিফট স্যানিটাইজ করা হয়নি। এই সমস্ত জায়গা থেকেই সংক্রমনের হার ২৮ শতাংশ।’

কিভাবে লিফটের মধ্যে থেকেই সংক্রণ ছড়াচ্ছে তা বুঝতে পেরেছেন সে ব্যাখায় আব্দুল মীর বলেন, ‘এমনও অনেক পরিবারের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি, যাঁরা বাড়ির বাইরে বের হননি এই দশ দিনের মধ্যে। শুধুমাত্র নিজেদের আবাসনের লিফটে করে নিচে নেমেছেন। তাদের মধ্যে থেকেই ১২ শতাংশ করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন।’ বিশিষ্ট পার্মোলজিস্ট অধ্যাপক ডাঃ অনির্বাণ বিশ্বাস বলেন, ‘একেবারেই সঠিক সময়ে সঠিক সমীক্ষা চালিয়েছেন সংস্থাটি। লিফট থেকে সংক্রমিত হবার আশঙ্কা অনেকটাই। কারন বদ্ধ জায়গায় করোনার জীবানু থেকে যাচ্ছে। সাধারণত লিফটের দরজা সব সময়ে বন্ধ থাকে। ফলে এমন একজন চেপে ছিলেন, যিনি মাস্ক ছাড়াই ভিতরে সংক্রমন ছড়িয়েছেন না জেনেই। পরবর্তী যে মানুষটি লিফটে চাপছেন, তিনি ভাবছেন একা আছি, তাই মাস্ক খুলে ফেলছেন। সংক্রমণের আশঙ্কা সেখান থেকেই জন্মাচ্ছে।’

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ মতন এখন লিফট ব্যবহারের জন্য যা করতে হবে:

১) সবচেয়ে ভালো হয় অন্ততপক্ষে তিন তলা অবধি ওঠার জন্য সিঁড়ি ব্যবহার করা। এর উপরে যাঁরা উঠবেন, তারা অবশ্যই মাস্ক পড়ে থাকবেন।

২) বড় জায়গায় লিফটে ওঠার আগে লাইন করন দূরত্ববিধি মেনে। লিফটের ভিতরে নির্দিষ্ট সংখ্যার অর্ধেক মানুষ চাপুন। যদি দশ জন মানুষ ওঠার সুযোগ থাকে লিফটে বর্তমান পরিস্থিতিতে চার থেকে পাঁচজনের বেশী না ওঠাই ভালো। ভিতরে যতটা সম্ভব দূরত্ব তৈরী কের একে অন্যের দিকে পিছন ফিরে থাকুন।

৩) লিফটের ভিতরে থাকা স্যুইজ গুলি ব্যবহার করার জন্য প্রত্যেকেই কোন ছোট টুথ পিক স্টিক বা টিস্যু ব্যবহার করেন, তাহলে সমস্যা অনেকটাই কম হতে পারে। লিফট থেকে নেমে হাত পরিষ্কার করে নিন। ব্যবহৃত টিস্যু বা টুথ পিক স্টিক নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলুন।

৪) পারতপক্ষে ছোটদের, বিশেষ করে দশ বছরের নিচের শিশুদের লিফট ব্যবহার থেকে বিরত রাখতে চেষ্টা করুন।  

৫) লিফটের বাটন, হাতল ব্লিচিং পাউডারের মিশ্রণ দিয়ে কিছুক্ষণ পর পর পরিষ্কার করে নিন। সপ্তাহে এক বা দু’বার স্যানিটাইজ করা আবশ্যিক। এতে সংক্রমণ ছড়ানো থেকে অনেকটাই রক্ষা পাওয়া সহজ হবে।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *