Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

জেলা

কোভিড মোকাবিলায় বাঁশের ব্যারিকেড

বঙ্গবাণী নিউজ, পূর্ব বর্ধমান: বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনা ওয়ার্ডে রোগীর আত্মীয় পরিজনেরা অকারণে ভিড় কমাতে বাঁশের ব্যারিকেড  দিয়ে ঘিরে দেওয়া হল। বেশ কিছুদিন ধরেই করোনা ওয়ার্ডের ভিতরে নানা অজুহাতে রোগীর বাড়ির লোকেরা ঢুকে পড়ছিলেন। চিকিৎসক, নার্স থেকে নিরাপত্তার কর্মীরা বারবার অনুরোধ করেই তাঁদের বার করতে হিমশিম খাচ্ছিলেন। অনেকেই জানলা দিয়ে খাবারও দিচ্ছিলেন। এতে চিকিৎসা পরিষেবায় যেমন সমস্যা হচ্ছিল পাশাপাশি রোগের সংক্রমন ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কাও বাড়ছিল ক্রমশই। সমস্ত দিক বিচার করেই এই সিধান্ত নিয়েছেন কর্তৃপক্ষ। এর পাশাপাশি রাধারাণী ওয়ার্ডের তিন দিকে কাঁটাতার দিয়েও ঘিরে দেবার পরিকল্পনা রয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষর।

এভাবেই দেওয়া হয়েছে বাঁশের ব্যারিকেড করোনা ওয়ার্ডের সামনে — নিজস্ব চিত্র

এদিনও দেখা গিয়েছে রাধারাণি ওয়ার্ডের সামনে অংশের বেশ কিছুটা ওয়ার্ড ঘিরে দিয়েছে। লাগানো হয়েছে নোটিশ বোর্ড। কিন্তু তারপরেও অনেকেই বাশের বেড়া ঢপকে যাচ্ছে। পাশাপাশি সুপারের অফিসের পিছন দিকের জানলা দিয়ে জানালা দিয়ে খাবর দিচ্ছে। জানালায় মুখ রেখেই কথা বলছে রোগীর পরিবারের সঙ্গে। জামালপুরের বাসিন্দা গোপাল প্রমাণিক বলেন, ‘এভাবে ঘিরে দিয়েছে তাতে সমস্যা বাড়বে। কারন ভিতরের রোগী পরিষেবা যদি ঠিক হত তাহলে আমাদেরতো যেতে হতো না। খাবার দেওয়া থেকে অক্সিজেন মাস্ক পড়ানো এসব তো নার্সরা করছেন না ঠিকমতন। তাই বাধ্য হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমরাই যাচ্ছি।’ শ্যামসুন্দর থেকে মা কে ভর্তি করেছেন আলম শেখ। তিনি বলেন মা এর বয়স হয়েছে। মাস্ক বারবার মুখ থেকে খুলে যাচ্ছে। আমরা জানলা দিয়ে দেখছি। নার্সরা বসে আছেন কোন সাহায্য করছেন না। এখন ঘিরে দিয়ে আমাদের ঢোকা বন্ধ করে দিল। তাহলে পরিষেবার উন্নতি কেন হচ্ছে না?’ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সুপার প্রবীর সেনগুপ্ত বলেন, ‘বহিরাগতদের করোনা ওয়ার্ডে ঢোকা সম্পুর্ণ নিষিদ্ধ। ওটা রেড জোন এলাকা। বারবার অনুরোধ করার পরেও কেউ শুনছেন বলেই এটা আমরা বাধ্য হয়েছি করতে। আর নার্সিং পরিষেবা নিয়ে যে অভিযোগ উঠছে সেটা একেবারেই ভিত্তিহীন। আমরা দাবি রেখে বলতে পারি, বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীদের এই মুহূর্তে সবথেকে ভালো পরিষেবা আমরা দিতে পারছি। ভিতরে যে নিময় মেনে ঢোকা উচিত সেটা রোগীর পরিবারের লোকেরা মানছেন না। আমরা অনুরোধ করেছি। জোর করে গলা ধাক্কা দিয়ে তো কাউকে বের করে দিতে পারিনা।  সেটা মানবিকও হবে না। তাই এই বাঁশের ব্যারিকেড আমরা বসিয়েছি। হাসপাতাল থেকে সুষম পুষ্টিকর খাবার নিয়ম করেই দেওয়া হচ্ছে করোনা আক্রান্তদের।’

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *