Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

জেলা রাজ্য

পরিবেশ রক্ষায় নতুন অঙ্গীকার

বঙ্গবাণী ব্যুরো নিউজ :বিশ্ব পরিবেশ দিবসে গাছ পুজো করে বর্ধমান অ্যানিমেল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির তরুণ সদস্যরা শপথ নিল সবুজ বাঁচানোর। অ্যানিমেল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি হলেও পশুদের সেবা-শুশ্রূষা সাথে সাথে গাছ লাগানোর, সবুজ বাঁচানোর কাজও শুরু করেছে। কাঞ্চননগর উদয় পল্লী এলাকায় দামোদরের পাশে সেচ দপ্তরের জায়গায় তারা কিছু চারা গাছ লাগিয়ে ছিল। সেই গাছগুলি ৩-৪ বছরে প্রায় বেশ অনেকটাই বড় হয়ে গিয়েছে। বিশ্ব পরিবেশ দিবসের দিন তারা সেই গাছগুলি পুজো করে এবং আরো আশিটি বিভিন্ন প্রজাতির চারা গাছ লাগায়।

পশুপাখিদের বাঁচানোর দীক্ষায় দীক্ষিত তরুণেরা এখন সবুজ বাঁচানোর পথের পথিক। বর্ধমান অ্যানিমেল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক অর্ণব দাস বলেন , “আমাদের অঙ্গীকার ছিল প্রাণীদের রক্ষা করা । সেই লক্ষ্যেই আমরা দীর্ঘদিন ধরেই জেলার বিভিন্ন প্রান্তে কাজ করেছি । বিভিন্ন প্রজাতির পাখি, সাপ , কচ্ছপ বহু কিছু উদ্ধার করে তাদের সুস্থ করে প্রকৃতির কোলে ছেড়ে দিয়েছি । আর প্রকৃতির কোলে ছেড়ে দিতে গিয়ে আমরা লক্ষ্য করেছি সবুজ ক্রমশ কমে আসছে । এর পরেই আমরা কাঞ্চননগর রথতলা এলাকার সেচ খালের পাশে বহু গাছ লাগিয়ে ছিলাম । তাদের বড় হতে দেখেছি। নিজেরা যত্ন করেছি। আজ এখানে এসে গাছের পুজো দিয়ে আমরা আবারও অঙ্গীকার করলাম সবুজকে বাঁচানোর । সেই লক্ষ্যেই আমাদের কাজ শুরু হল। এদিন বহু বাবুই , টিয়া পাখি কে মুক্ত করে দিয়েছি আমরা । ৮০ টি গাছ লাগিয়েছি। সবুজ না বাঁচলে আমরাও বাঁচবো না। ”

রায়না বিধানসভার রায়না ১ ব্লক এর পক্ষ থেকে বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে গাছ লাগানোর উদ্যোগ নেওয়া হয়। এলাকায় ৫০০ টির বেশি বিভিন্ন ধরনের গাছ লাগান সবাই। সেই উদযাপনে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক শম্পা ধারা। তিনি বলেন ,”সবুজ বাঁচাতে না পারলে প্রকৃতির ভারসাম্য হারিয়ে যাবে। একে রক্ষা করতে গেলে সবার আগে প্রয়োজন গাছ লাগানো ।পরিবেশ দিবসে এটাই হোক আমাদের অঙ্গীকার” । রায়না এলাকার প্রত্যেক মানুষের কাছে তিনি আবেদন জানিয়েছেন যেন তারা বাড়িতে বা আশেপাশের এলাকায় অন্তত দশটা করেও গাছ লাগান এবং তার পরিচর্যা করেন।

বিশ্ব-পরিবেশ রক্ষার অঙ্গীকার বিধায়ক ও জেলা সভাধিপতি শম্পা ধারার। – নিজস্ব চিত্র

বিশ্ব পরিবেশ দিবসের উদযাপনে গাছ লাগানোর পাশাপাশি বর্ধমান অ্যানিমেল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি উদ্ধার করা বেশকিছু বাবুই, সাধারণ টিয়া , চন্দনা টিয়া , কচ্ছপকে তারা ফিরিয়ে দিয়েছে তাদের প্রকৃতি মায়ের কাছে। ডিভিসি ক্যানেলে কিছু চারা মাছও ছেড়েছে তারা।এই সংস্থাটি দীর্ঘ বেশ কয়েক বছর ধরে প্রাণীদের প্রাণ রক্ষার কাজে নিজেদের নিয়োগ করেছে । বিভিন্ন ধরনের প্রাণী উদ্ধার করে তাদের সেবা-শুশ্রূষার মাধ্যমে সুস্থ করেছে। তারপর তাদের ফিরিয়ে দিয়েছে প্রকৃতির কোলে। এমনকি তারা বহু কুকুরের আজীবন দায়িত্ব নিয়েছে যাদের আর চলাফেরা করার ক্ষমতা নেই। তাদের এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা খাঁচায় রেখে পরিচর্যা করছে।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *