Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

দেশ বিতর্ক

দিল্লী হাইকোর্টের রায়, নয়া নিয়ম মানতে বাধ্য ট্যুইটার এবং হোয়াটসঅ্যাপ

বঙ্গবাণী ব্যুরো নিউজ :কেন্দ্রের ডিজিটাল মিডিয়ার নয়া নিয়ম মেনে নিতে অস্বীকার করে টুইটারের তরফ থেকে দিল্লী হাইকোর্টে মামলা করা হয়েছিল। বলা হয়েছিল কেন্দ্রের নয়া নিয়ম জনগণের ব্যক্তিগত পরিসরে হস্তক্ষেপ করে। দিল্লী হাইকোর্টের রায়ে ভারতে থাকতে এবং ব্যবসা যদি করতে হয় তবে কেন্দ্রের ডিজিটাল মিডিয়ার নতুন আইন মানা আবশ্যিক। সরকার কখনও কারোর ব্যক্তিগত পরিসরে হস্তক্ষেপ করেনা, দেশের আইন মেনেই প্রত্যেকের গোপনীয়তা বজায় রাখা হবে।

কেন্দ্রের নতুন নিয়মের আওতায় আসতে বলা হয়েছিল টেলিগ্রাম, গুগল হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক, কু, শেয়ারচ্যাট, লিঙ্কডইন, ট্যুইটার ইত্যাদি অ্যাপদের; তারা প্রত্যেকেই এখন এই নিয়ম মেনে নিয়েছে। যদিও ফেসবুক প্রথমে নিয়ম সম্পূর্ন মেনে নিলেও মানতে নারাজ ছিল ট্যুইটার এবং হোয়াটসঅ্যাপ। দিল্লি হাইকোর্ট কেন্দ্রের নিয়ম পর্যালোচনা করে ট্যুইটারকে নোটিশ দেয় তা মেনে নেবার জন্যে।

ভারতের হোয়াটসঅ্যাপ সংস্থার মুখপাত্র জানিয়েছেন, “ভারতের সোশ্যাল মাধ্যমের আইন মেনেই স্বচ্ছতা ও বাক স্বাধীনতা রক্ষা করার চেষ্টা করব আমরা। পাশাপাশি আইনের আওতায় থেকেই প্রত্যেকের গোপনীয়তা বজায় রাখার চেষ্টা করা হবে।” বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার যেভাবে হচ্ছে তাতে নির্ভর করে ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারিতে সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে বেশ কয়েকটি নিয়ম জারি করা হয়েছিল কেন্দ্রের থেকে। ইলেকট্রনিক্স ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রকের তরফ থেকে তিনমাস দেওয়া হয় সেই নিয়ম কার্যকরী করার জন্যে। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার এবং কাজের পদ্ধতিতে কেন্দ্রের সাথে দ্বন্দ্ব সহজে মেটার নয়। হোয়াটসঅ্যাপের প্রথমে বক্তব্য ছিল কেন্দ্রের এই নতুন নিয়ম মেনে হোয়াটসঅ্যাপে করা প্রতিটি মেসেজের দিকে নজর রাখতে গেলে ‘এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন’নিয়ম ভঙ্গ হয়ে যাবে, ফলে বিঘ্নিত হবে জনগণের গোপনীয়তা। একইভাবে ট্যুইটার মানুষের বাক স্বাধীনতা নিয়ে প্রশ্ন করলেও দিল্লী হাইকোর্টের রায়ে কেন্দ্রের শর্ত মেনে বাধ্য হল দুজনেই।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *