Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

দেশ

সোশ্যাল মিডিয়ার উদ্দেশ্যে বার্তা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদের

বঙ্গবাণী ব্যুরো নিউজ: কেন্দ্রীয় সরকারের সোশ্যাল মিডিয়া সংক্রান্ত নয়া নিয়ম-নীতিকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়া এবং কেন্দ্রের সমস্যা এখনো মেটেনি। আইন সংক্রান্ত ইউনিয়ন মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ একটি সংবাদ মাধ্যমে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে এদিন জানিয়েছেন, ভারত তার সাংবিধানিক কোনো আইনের বিরুদ্ধে গিয়ে কোন সোশ্যাল মিডিয়ার স্বার্থপূরণ করবে না। পূর্বেই দিল্লি হাইকোর্ট থেকে ট্যুইটারের করা মামলার শুনানিতে বলা হয়েছে যে ভারতে ব্যবসা করতে গেলে প্রত্যেকটি সোশ্যাল মিডিয়াকে ভারতীয় আইন ও নীতি মেনে চলতে হবে। না হলে তাদের ব্যবসা করতে দেওয়া যাবে না।

রবিশঙ্কর প্রসাদ আরও জানিয়েছেন, ‘কেন্দ্রের নয়া নিয়ম নীতি অনুযায়ী সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের কোন গোপন তথ্য ব্যবহারকারীদের হাতছাড়া হবে না। ভারত একটি গণতান্ত্রিক দেশ, এই গণতান্ত্রিক দেশে প্রত্যেকটি সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানি নিজেদের ব্যবসা চালিয়ে তাদের লাভ করতে পারে। সেই ব্যবসার ক্ষেত্রে কোনো রকমের হস্তক্ষেপ করবে না ভারতীয় সরকার। কিন্তু ভারতে ব্যবসা-বাণিজ্য চালাতে গেলে ভারতীয় আইনের বিরুদ্ধে কোনো কথা বলা যাবে না।’ নয়া নিয়ম নীতিতে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের ব্যবহার নিয়ে কোনো হস্তক্ষেপ করেনি কেন্দ্র।

যেহেতু ভারতে বাক স্বাধীনতার অধিকার আছে প্রত্যেক ভারতীয় জনগণের তাই বাক স্বাধীনতা খর্ব করার কোন নিয়ম নীতি কেন্দ্র থেকে দেওয়া হয়নি।ট্যুইটার এবং হোয়াটসঅ্যাপের যা দাবি ছিল এন্ড টু এন্ড এনক্রিপশন নিয়ে। এই নতুন নিয়ম প্রধানত তিনটি বিষয়ে গুরুত্ব দেয়- প্রথমত, ভারতীয় সোশ্যাল মিডিয়াগুলি পরিচালনার দায়িত্বে যারা থাকেন তাদের সমস্ত রকম তথ্য কেন্দ্রের কাছে জমা দিতে হবে, দ্বিতীয়ত সোশ্যাল মিডিয়াগুলি ঠিকমতো নিয়ম-কানুন মানছে কিনা তা খতিয়ে দেখার জন্য একজন অফিসার নিয়োগ করতে হবে সোশ্যাল মিডিয়াগুলি কে, তৃতীয়ত সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানীগুলির সাথে কেন্দ্রীয় সরকারের সরাসরি যোগাযোগের জন্য একজন অফিসার রাখতে হবে। কেন্দ্রের তরফ থেকে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের বলা হয়েছে যে তাদের ব্যক্তিগত মেসেজ নিয়ে আতঙ্কিত হবার কোন কারণ নেই বরং তাদের মেসেজ যথাযথ নিরাপদেই থাকবে। শুধুমাত্র যারা হোয়াটসঅ্যাপ এর মতন সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানি গুলোর সাথে সরাসরি যুক্ত তাদের কার্যকলাপ এর ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে চায় কেন্দ্র। এতে ভারতের সার্বভৌমত্ব এবং সংবিধানের মর্যাদা বজায় থাকবে।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *