Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

দেশ বিতর্ক

সেন্ট্রাল ভিস্টার বিরুদ্ধে সওয়াল! জরিমানা এক লক্ষ

বঙ্গবাণী ব্যুরো নিউজ :সেন্ট্রাল ভিস্টা প্রকল্পে সরকারের বিরুদ্ধে করেছিলেন মামলা । ফলাফল এক লক্ষ টাকার জরিমানা। এমনকি প্রশ্নও করা হয়েছে আবেদনকারীর উদ্দেশ্য নিয়ে।

করোনা পরিস্থিতিতে দিল্লিতে লকডাউন চলাকালীন বন্ধ থাকুক সেন্ট্রাল ভিস্টা প্রকল্পের নির্মাণ, এই আবেদন জানিয়ে দিল্লি হাইকোর্টে মামলা করেন দুই আবেদনকারী । সোমবার হাইকোর্টের থেকে খারিজ করে দেওয়া হয় সেই আবেদন। এবং তার সাথেই আবেদনকারীদের এক লক্ষ টাকা করে জরিমানা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয় । উচ্চ আদালত জানিয়ে দিয়েছে যে এই কাজ বন্ধ থাকবে না।

হাইকোর্টে করা এই আবেদনে আবেদনকারীর প্রশ্ন ছিল, দিল্লিতে যখন লকডাউন এর সমস্ত রকম নির্মাণ কার্যক্রম সম্পূর্ণ বন্ধ , তাহলে এই প্রকল্পের কাজ বন্ধ হয়নি কেন? তিনি আরো বলেন যে ওই প্রকল্পে ৫০০ জনের বেশি শ্রমিক কাজ করছে। তাতে অনেক বেশী করোনা সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

তাদের এই আবেদন খারিজ করে হাইকোর্ট জানায়, দেশের মানুষ এই প্রকল্পে আগ্রহী ।এবং আগামী নভেম্বর মাসের মধ্যে কাজ শেষ করার চুক্তি রয়েছে। এটি একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সরকারি প্রকল্প এবং এর জাতীয় গুরুত্ব রয়েছে । এই প্রকল্পের বৈধতা ইতিমধ্যে প্রমাণিত এবং সরকারকে এই কাজ চলতি বছরের নভেম্বরের মধ্যে শেষ করতে হবে।
আর শ্রমিকদের করোনা সংক্রমণ প্রসঙ্গে আদালতের তরফ থেকে বলা হয়, সমস্ত শ্রমিক এখন নির্মাণ স্থলেই থাকছেন। এবং তারা সমস্ত করোনা বিধি মেনেই চলছেন ।তাই আর্টিকেল ২২৬ এর আওতায় এনে এই প্রকল্পের কাজ বন্ধ করার কোন কারণ আদালতের কাছে নেই।অন্যদিকে আবেদনকারী দুই ব্যক্তিকে এক লক্ষ টাকা জরিমানা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এবং তাদের মামলাটিকে অবৈধ বলে ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ভারতবর্ষের স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে জাতীয় গৌরব ফলক হিসেবে নির্মাণ করা হচ্ছে এই সেন্ট্রাল ভিস্টা। এই প্রকল্প নির্মাণে খরচ হচ্ছে প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা। এর আগেও অনেকবার বিরোধীরা এই প্রকল্পে টাকা খরচ না করে বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের স্বাস্থ্য খাতে এই টাকা খরচ করার দাবি জানিয়েছেন। এবং বেশকিছু প্রাক্তন আধিকারিকরাও এই নির্মাণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তারা বলেছিলেন , যেখানে ভারতের আর্থিক অবস্থার এত ঘাটতি সেখানে এই মুহূর্তে এই প্রকল্প বানানোর প্রয়োজনীয়তা কি?

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *