হুল উৎসব থেকে তির-ধনুক নিয়ে হামলা, তিরবিদ্ধ উপ-প্রধানের ভাই, শালবনি কোবরা ক্যাম্পে জওয়ানের আত্মহত্যা, করোনায় মৃতদের পরিবারকে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের, কসবা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবকে মনোরোগী বলে দাবি করলেন আইনজীবী, বালি তোলা সহ নানা সমস্যার সমাধান করতে হবে বৈঠকে বললেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে, জনপ্রিয় অভিনেতা বর্তমানে মাছ ব্যবসায়ী, হলফনামা জমা দেবার ক্ষেত্রে জরিমানা দিতে হল পাঁচ হাজার টাকা, আজ ঘোষণা হতে পারে নারদ মামলার রায়, বুধবার থেকে পনেরো শতাংশ ভাড়া বাড়ছে ওলা উবেরের,

Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

এই মুহূর্তে দেশ

“কোনো কেন্দ্রীয় সংস্থা নিরপেক্ষ নয়। বাংলাকে হেয় করাই উদ্দেশ্য”, বাংলায় কেন্দ্রীয় মানবাধিকার কমিশনের দল

বঙ্গবাণী ব্যুরো নিউজ: বিধানসভা নির্বাচনের পর বিজেপি কর্মীদের ওপর আক্রমণের ঘটনা খতিয়ে দেখতে রাজ্যে পাঠানো হয়েছে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের একটি দল।
কলকাতায় এসে উপস্থিত হয়েছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তিন সদস্য ডিএসপি রাজেন্দ্র সিংহ, ডিএসপি মুনিয়া উপ্পল ও ইন্সপেক্টর জিন্টু সাকিয়া।

২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনের পর তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা বিজেপি কর্মীদের ওপর আক্রমণ করে। সোনাপুকুর-শংকরপুর পঞ্চায়েত অফিসে কেন্দ্রীয় ওই দল উপস্থিত হলে সেখানে স্বপন মন্ডল নামের এক ব্যক্তি অভিযোগ জানিয়ে বলেন, “ভোটের ফল বেরোনোর পরে দুষ্কৃতীরা ভাঙচুর করে, লুটপাট করে বাড়ি। খড়ের গাদায় আগুন লাগিয়ে দেয়। আমরা ভয়ে বারাসাতে পালিয়ে যাই।” কিন্তু অন্যদিকে সন্দেশখালি তৃণমূল বিধায়ক সুকুমার মাহাতো পাল্টা অভিযোগ করে বলেছেন, “পরিকল্পনা করে বিজেপি গোলমাল পাকাচ্ছে।” ওদিকে শিলিগুড়িতে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের আট সদস্যের দল গেছে যাদের মধ্যে রয়েছেন লাল বাহাদুর, কুলবন্ত সিংহ, ডিএসপি রাজবীর সিংহ, কুল বীরসিংহ আরও অনেকে। অন্যান্য সদস্যরা কোচবিহার-দিনহাটা রওনা দেবার পরে জামাদরবস এলাকায় যান। এদিন উত্তর চব্বিশ পরগনা বসিরহাট মহকুমাতে আক্রান্ত বিজেপি কর্মী সমর্থকদের সঙ্গে কথা বলেছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের প্রতিনিধিরা। তৃণমূলের এক সক্রিয় সদস্য জানিয়েছে, “অপপ্রচার চলছে। চুয়াল্লিশ জনের একটি তালিকা তৈরি হয়েছিল, যারা গন্ডগোলের আশঙ্কায় বাইরে চলে গিয়েছিলেন। বেশিরভাগই ফিরে এসেছেন।” এছাড়াও কোচবিহার জেলার সভাপতি পার্থ প্রতিম রায় কেন্দ্রীয় মানবাধিকার কমিশনের দলের প্রসঙ্গে বলেছেন, “কোনো কেন্দ্রীয় সংস্থা নিরপেক্ষ নয়। বাংলাকে হেয় করাই উদ্দেশ্য। উত্তরপ্রদেশে কিন্তু কমিশনকে দেখা যায় না!” পার্থ প্রতিম রায়ের এই ক্ষোভের সুরে সুর মিলিয়ে দিনহাটার প্রাক্তন বিধায়ক উদয়ন গুহও বলেন, “আশা রাখি কমিশনের সদস্যরা আক্রান্তদের সবার কাছেই পৌঁছাবেন। নইলে বুঝতে হবে নিরপেক্ষতা নেই।” কদিন ধরেই বঙ্গভঙ্গ ইস্যু নিয়ে তোলপাড় রাজনৈতিক মহল। বারবার সামনে উঠে এসেছে রাজ্য বনাম রাজ্যপাল দ্বন্দ্ব। এখনও পর্যন্ত মাননীয় রাজ্যপালের দিল্লি সফর করে আসার আসল উদ্দেশ্য জানা যায়নি, তবে তৃণমূল দলের একাংশের ধারণা বাংলাকে চাপে রাখতেই কেন্দ্রীয় দলের কৌশল এগুলো।

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *