www.bongobanii.com, www.bongobanii.com, www.bongobanii.com, www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com www.bongobanii.com, শালবনি কোবরা ক্যাম্পে জওয়ানের আত্মহত্যা, করোনায় মৃতদের পরিবারকে দিতে হবে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রকে নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের, কসবা কাণ্ডে অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবকে মনোরোগী বলে দাবি করলেন আইনজীবী, বালি তোলা সহ নানা সমস্যার সমাধান করতে হবে বৈঠকে বললেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া, পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে, জনপ্রিয় অভিনেতা বর্তমানে মাছ ব্যবসায়ী,

Latest Trending Online News Portal : Bongobani.com

Sports News District News National News Updates

মতামত লেখকের

দেশভাগ,লুন্ঠিত মানবতা

অনির্বাণ বিশ্বাস

মুখে আমরা যাই বলি (এবং পৃথিবীর ইতিহাসও তাই বলে) যেখানে যে ধর্মের মানুষ সংখ্যাগরিষ্ঠ তারাই সংখ্যায় নগন্যদের দমিয়ে রাখে, অধিকার বঞ্চিত করে রাখে।  এটা শুধু হিন্দু-মুসলমান করে, তা নয়। সব ধর্মেই করে, অহিংসার বাণী প্রচার কারী বৌদ্ধ ধর্মের অহিংসের নমুনা আমরা দেখেছি মায়ানমারে,চীনে। মানব ইতিহাসের বড় বড় যুদ্ধগুলো সেই ধর্মকে নিয়ে, নিজের ধর্মকে প্রতিষ্ঠার জন্যে। কোন ধর্মই তলোয়ার আর রক্ত ছাড়া সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি কোন দেশে। ধর্মই মানব ইতিহাসকে যুগে যুগে রক্তাত্ত করেছে পৃথিবীর মানচিত্রের নানান বাঁকে। নানা দেশের মানুষের নানা ভাষা, নানান সংস্কৃতি…. কিন্তু সব ধর্মের রুপ আর ভাষা সব দেশে এক…।

ভুল তত্ত্বের উপর দাঁড়িয়ে ভাগ হয়েছিলো ভারত-পাকিস্তান। ধর্ম দিয়ে দেশ ভাগের নজির বোধহয় আর একটিও নেই পৃথিবীর মানচিত্রে। তুমি মুসলমান আর আমি হিন্দু, আমরা একে অপরের শত্রু এমন করে বিভাজনের যে রেখা টেনে দেওয়া হয়েছিলো ১৯৪৭ এ, আজো ডিএনএর মতো আমরা বয়ে চলছি তা। তার দৃষ্টান্ত ,যারা সংখ্যায় কম তাদেরকে ভিটেছাড়া করা, ঘর বাড়িতে আগুন দেওয়া,খুন করা। কয়জন-ই বা পারে সেই ডিএনএকে প্রাকৃতিক নির্বাচনের মতো পরিবর্তন করে নতুন বৈশিষ্ট্যের আনয়ন করতে?

বউ-মেয়ের সম্ভ্রম বাঁচাতেই হোক কিংবা শান্তিতে একটু ঘুমের জন্যই হোক দেশ থেকে পঙ্গপালের মতো মানুষ দেশান্তরী হয়েছে ১৯৪৬-৪৭ এ,’৭১ এ। নিজ ভূমি-মা হারিয়ে সবাই রিফিউজি হয়ে যাওয়াটাকেই নিয়তি বলে মেনে নিয়েছে। ওপার থেকে এসেছে যেমন, এপার থেকেও গিয়েছে তেমনি। অনুপাতে কম-বেশি হতে পারে কিন্তু মানুষের নির্মমতায় কমবেশি নেই।

ছোটবেলায় এটা নিয়ে একদিন প্রশ্ন করেছিলাম দাদুকে।দাদুও রিফিউজি ছিলেন।

দাদু বলেছিলেন, ‘দেশ স্বাধীন করতে গেলে অনেক মূল্য দিতে হয়, বিনামূল্যে স্বাধীনতা অর্জন হয়না। তুমি বড় হলে বুঝবে স্বাধীন হতে হলে, গর্বিত হতে গেলে রক্ত দিতে হয়, অশ্রু দিতে হয় ‘ -দাদু কেঁদে ফেলেছিলেন।সেটা নতুন স্বাধীনতার আনন্দে না পূর্ব পাকিস্তানে সব হারিয়ে আসার যন্ত্রনায়,তখন বুঝিনি।

বিখ্যাত ভাওয়াইয়া গায়ক আব্বাসউদ্দিন দাদুর বন্ধুছিলেন।বাবার কাছে আব্বাসউদ্দিনের গল্প শুনেছি।দেশ ভাগের মাস কয়েক পর তিনি কুচবিহার থেকে রঙপুর চলে গেলেন,সপরিবারে। একদিন তিনি আবার একা ফিরেও আসলেন,দাদুর কাছে কাঁদতে লাগলেন। দাদু জিজ্ঞেস করলেন, ‘দাদা ফিরলেন যে?’ দাদা বললেন, ‘পায়ে ঘা নিয়ে রঙপুর হাসপাতালে গেসলাম একদিন। ডাক্তার এসে দেখছিলো না, এটা নিয়ে একটু উত্তেজিত হতেই রিফিউজি বলল…নিজের দেশ ছেড়ে রিফিউজি হয়ে থাকতে ভালো লাগেনা’ আব্বাস মিঞা নিঃশব্দে কাঁদতে থাকেন।

আমার মনে হয়, কিছু কিছু মানুষের কোন দেশ নেই। তারা বড্ড দুর্ভাগা, কোথাও তাদের জায়গা নেই। ঈশ্বর থাকেন ওই দূর আকাশে, এই দোআঁশ মাটির গ্রামে-গঞ্জে তার গতিবিধি সীমিত।

সেই ১৯৪৭ এ শুরু হয়েছিল, এখনো চলছে,সংখাগরিষ্ঠ/রাষ্ট্রের মদতে আরো ঘৃনা,আরো ভাতৃহত্যা লুঠ পাট,ধর্ষন…বাংলাদেশ,ভারত,পাকিস্তানে। মুসলিম লীগ হিন্দু মহাসভা সব আমাদের জিনে ঢুকে গেছে।আমরা রয়ে গেছি,সময় পরিবর্তনে নয়, রক্তে,দাঙ্গায়।

অন্য ধর্মের প্রতি আক্রোশের বিষে বিষাক্ত হয়েছে আমাদের মানবিকতা।ইদানীং মনে হয় শুধু ভিনধর্মেই না, ভিন মানুষেই আমাদের আক্রোশ চলে আসছে। নাহলে এভাবে অহরহ পুড়িয়ে, পিটিয়ে, কুপিয়ে মানুষ মারা হচ্ছে কেন যত্রতত্র ?

1 COMMENTS

LEAVE A RESPONSE

Your email address will not be published. Required fields are marked *